দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: বোয়ালমারীতে জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে ইমামদের করণীয় শীর্ষক সভা        দেশীয় শিল্প নিয়ে চক্রান্তের প্রতিবাদে সিরাজগঞ্জে বিড়ি শ্রমিক সমাবেশ        পিএইচডি ইনক্রিমেন্ট স্থগিতের প্রতিবাদ ইবি শিক্ষকদের       জুনে ১০ খালের স্লুইচ গেইট খুলে দিতে চায় সিডিএ        দৌলতদিয়ায় জেলের জালে ২০ কেজির পাঙ্গাস       বোয়ালমারীতে গ্রাম পুলিশের মধ্যে ইউনিফরম বিতরণ        আলীকদমে বিজিবির অভিযানে ৪০টি বিদেশি গরু আটক       বোয়ালমারীতে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত        দীপিকার এই টি-শার্টের দাম ৮৪ লাখ টাকা       ওজন কমাতে কোন রঙের প্লেটে খাবার খাবেন?      
মাসোহারায় ম্যানেজ উপশহর ফাঁড়ি ইনচার্জ
খাজুরা স্ট্যান্ডে ইজিবাইক থেকে ব্যাপক চাঁদাবাজি, ক্ষুব্ধ চালকরা
বিশেষ প্রতিনিধি :
Published : Thursday, 12 May, 2022 at 1:11 AM, Count : 559
খাজুরা স্ট্যান্ডে ইজিবাইক থেকে ব্যাপক চাঁদাবাজি, ক্ষুব্ধ চালকরা যশোর উপশহর খাজুরা বাসস্ট্যান্ডে ইজিবাইকে বেশুমার চাঁদাবাজি চলছে। সংঘবদ্ধ একটি চক্র পেশি শক্তি বলে প্রতিদিন দুই শতাধিক বাইক থেকে চাঁদাবাজি করছে। খাজুরা স্ট্যান্ড থেকে মাগুরা রুটে আসা যাওয়া করা ইজিবাইক চালকদের জিম্মি করে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চলছে এদের অপতৎপরতা।

এছাড়া স্থানীয় ফাঁড়ি ইনচার্জের সাথে সখ্যতা করে ইজিবাইক আটকিয়ে দেয় তারা। অভিযোগ উঠেছে, ফাঁড়ি ইনচার্জকে মাসিক ১৫ হাজার টাকা দেয় ওই চাঁদা উঠানো চক্রটি। শেখহাটি ও ঘোপ কবরস্থান পাড়ার একটি চিহ্ন্তি চক্র এর নেতৃত্বে রয়েছে। চাঁদাবাজদের অপতৎপরতায় অতিষ্ঠ চালকরা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এবং দ্রুত আটক দাবি করেছেন চিহ্নিত ওই চক্রকে।

ভূক্তভোগী একাধিক চালক ও বাস স্ট্যান্ডের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, বিগত কয়েক বছর ধরে যশোর উপশহর এলাকা ও যশোর-মাগুরা সড়কে যাত্রীবহন করা ইজিবাইক চালকগন জিম্মি আউব আলী চাঁদাবাজ চক্রের হাতে। খাজুরা বাস স্ট্যান্ড, উপশহর এলাকা কিংবা যশোর-মাগুরা সড়কে ইজিবাইক ঢুকলেই প্রতিদিন ২০ টাকা দিতে হয়। উপশহর খাজুরা বাসস্ট্যান্ড থেকে বাহাদুরপুর, মনোহরপুর, ইছালী ও খাজুরা পর্যন্ত আসা যাওয়া করা বাইকগুলো থেকে এই ২০ টাকা করে চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া আড়পাড়া, মাগুরা ও সীমাখালী থেকে কোনো ইজিবাইক উপশহর খাজুরা স্ট্যান্ডে আসলে ৩০ থেকে ৫০ টাকা আদায় করা হচ্ছে। ইজিবাইকে পরিবহনে চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে পুলিশ সুপারের কঠোর হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও খাজুরা বাসস্ট্যান্ডের চক্রটি স্থানীয় ফাঁড়ি ইনচার্জকে ম্যানেজ করে এখানে চাঁদা আদায় করছে। প্রতিদিন দুই শতাধিক ইজিবাইক থেকে এরা চাঁদা আদায় করছে। রাতে স্থানীয়  আল আমিন ও রুহুল আমিনের দোকানে বসে চক্রটি আদায় করা ওই টাকা ভাগাভাগি করে।

এই চাঁদাবাজ চক্রের নেপথ্যে নেতৃত্ব দিচ্ছেন জুয়েল নামে এক যুবক। তার নেতৃত্বে কবরস্থান দাস পাড়ার আইউব আলী, ২শ’ টাকা দিন হাজিরায় আদায়কারী কামাল হোসেনসহ ৬/৭ জনের একটি চক্র দিনভর এই চাঁদাবাজি করে। এর আগে এক কিশোর ইজিবাইক চালক হত্যার অভিযোগও রয়েছে ওই আইউব আলীর বিরুদ্ধে। এই চক্রের অব্যাহত চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ ইজিবাইক চালকরা।

ইজিবাইকসহ বিভিন্ন ভার্সনের যানবাহন থেকে নিয়মিত চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। জুয়েল, আইউব, কামাল ছাড়াও নেতা নামধারী কতিপয় ধুরন্ধরের পকেটে যাচ্ছে ওই টাকা। কয়েকজন ইজিবাইক চালক এ প্রতিবেদকের কাছে কান্না বিজড়িত কন্ঠে জানিয়েছেন, শহরের অন্য সব স্থানে চাঁদাবাজির ঘটনা নজরদারিতে নিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। ইজিবাইক থামিয়ে চাঁদাবাজির ঘটনায় সিটি কলেজপাড়ার আলোচিত এক চক্রকে এর আগে আটক করা হয়। আর ইজিবাইকে চাঁদাবাজি করা হবে না মর্মে  মুচলেকা দিতে হয় তাদের। কিন্তু খাজুরা বাস স্ট্যান্ডে ওসবের বালাই নেই। চক্রটি প্রতি মাসে ফাঁড়ি ইনচার্জ এজাজুল ইসলামকে ১৫ হাজার টাকা দেয় বলে জাহির করে চাঁদা ওঠাচ্ছে।

সিরিয়াল দেয়ার নামে এরা এখানে প্রতি সাসে দুই লক্ষাধিক টাকা চাঁদাবাজি করছে। এ ব্যাপারে চালকরা বিভিন্ন সময় পুলিশকে জানালেও কর্ণপাত করেনা পুলিশ। তারা জানান, দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। প্রয়োজনে ইজিবাইক চালকরা গোটা শহরে ছড়িয়ে পড়ে একাট্টা হয়ে প্রতিবাদ মিছিল বের করবে। থানায় অবস্থান নেবে। ভূক্তভোগী ইজিবাইক চালকরা আরও জানান, যারা ইজিবাইক থেকে চাঁদাবাজি করছে তাদের দ্রুত আটক করতে হবে।

এ ব্যাপারে যশোর উপশহর ফাঁড়ি ইনচার্জ এজাজুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি জানিয়েছেন, খাজুরা বাস স্ট্যান্ড এলাকায় ইজিবাইক থেকে চাঁদাবাজি করা হয় এমন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। কোনো সমিতির নামে চাঁদা ওঠানো হচ্ছে কিনা তা তার পরিস্কার জানা নেই। এ বিষয়ে তিনি খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেবেন। এছাড়া ওই চাঁদাবাজ চক্রের সাথে তার সখ্যতা রয়েছে কিংবা কোনো আর্থিক লেনদেন রয়েছে এমন  অভিযোগ সত্য নয়। উপশহর এলাকায় কোনো চাঁদাবাজের ঠাঁই নেই। যে চক্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হচ্ছে তাদের ব্যাপারে খোঁজ নেয়া হবে। শ্রমিকের টাকা নিয়ে কেউ পকেট ভারি করবে, পুলিশ এ অনৈতিকতা চলতে দেবে না।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft