আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
শিরোনাম: পদ্মা সেতুর উদ্বোধন থেকে ফেরা হলো না অহিদুল-মফিজুরের       স্বপ্ন হলো সত্যি       পদ্মাপাড়ের উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়ে যশোরেও       সাংবাদিক মিজানুরের পিতার ইন্তেকাল       জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের বাজেট বিষয়ক বিশেষ সাধারণ সভা       পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রীকে যবিপ্রবি পরিবারের ধন্যবাদ       অনুর্ধ্ব-২০ ভলিবল দলে যশোরের দু’জন       ব্যাটিংয়ে অখুশি সিডন্স       বড় পর্দায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন দেখলেন যশোরবাসী       কালিয়ায় ট্রলিচাপায় মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু      
ইরাম ব্যারাম হলি বিপদ!
Published : Wednesday, 18 May, 2022 at 9:45 PM, Count : 152
ম্যালাদিন আগে এট্টা চিটি পড়িলাম। চিটিডার ভাষা ছিলো ইরাম, পিয় মেঘনাদ বাবু, গ্যালো শনিবার রাত্তিরি খুব বিস্টির সুমায় আমার বাড়িত্তে ফিরে যাওয়ার জন্যি আমাগের কাজের লোক পাশের বাড়িত্তে যে ছাতিডা আপনারে আইনে দিলো সেই ছাতিডা পাশের বাড়ির ভদ্দরলোক আজ চাতি আইলো। ভদ্দরলোক আইসে আমারে কলেন ছাতিডা তারও না, তিনি তার অপিসির বড়বাবুর কাচেত্তে চাইয়ে আনিলেন। একন বড়বাবুরে তার ভায়রাভাই ছাতিডার জন্যি খুব চাপাচাপ কইত্তেচে। কারন হচ্চে বড়বাবুর ভায়রাভাই তার যে বন্ধুডার কাচেত্তে ছাতিডা দিচ্চি কইয়ে নিয়ে আইলো সেই বন্ধুর মামা ছাতিডা ফেরট চাইয়েছেন। ছাতিডা নাই সেই বন্ধুর মামারও নিজির না মামা তার শউরির কাচেত্তে নিয়ে আইলেন। চিটিডা তারাপদ রায়ের লিকা।
আমাগের আশপাশেও ইরাম বহুত মানুস তলাশ কল্লি পাওয়া যাবে যাইগের ইরাম ব্যারাম আচে। এই দিচ্চি দিবানে কইয়ে এট্টা জিনুস নেবে পরে তার আর কোন হদিস থাকপে না। না লোকের না জিনুসির। আর হাওলোতের জিনুস যদি হয় টাকা তালি তো কতায় নেই। সেদিন এক ম্যা’ভাই কলে কারো টাকা হাওলোত দিয়ার সুমায় নিজিরে নবাব মনে হয় কিন্তুক সেই টাকার তাগেদায় তকন জুতোর তলা খ্যায় হতি থাকে তকন নিজিরি পতের ফকির মনে হয়। আমাগের এলেকায় একজন আচে তেমাতায় হ্যানো কোন দুকান নেই তাতে তার নাম নেই বাকির খাতায়। বিয়ানবেলা মুখি দাতোন ঘষতি ঘষতি আসপে তেমাতায়। হোটেলে ঢুইকে নবাবি চালি পরোটা ডিম ডালভাজি অডার দেবে। আশপাশে লোক থাকলি তারেও নাস্তা দিতি কবে। খাইয়ে দাইয়ে হাত ধুয়ার নাম কইরে বাইরি বাইরোয়েই সুজা হাটা। পেছনতে যদি দুকানদার টাকা চায়, কবে চুতা কইরে রাক। ওবেলায় আইসে দিবানে। ওর জীবনে আর সেই ওবেলা আসপেনা। কোন দুকানদার তার খাইসলোতের জন্যি আগে টাকার কতা কয় তালি কাটা কতা কইয়ে দেয়, আরে বাপু আগে খাতি দে, আমি তো কপ্পুর না উইড়ে যাবো। হতো টাকা টাকা করিস ক্যান তুরা।
যাইগের লেনদেনে ইরাম ডিগবাজি তাইগের আবার আঙাচ বেশি। ইরাম পাট নেবে, আরে কয়টাকা পাইস যে হররোজ তাগেদা দিস। আঙাচের কচনে তাগেদা দিয়ে উল্টে পাওনাদারই ফল্টে পইড়ে যাবে। কি সব্বোরাশে কতা কওদিনি বাপু, আলাম কনে, মলাম যে!
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft