দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: পদ্মা সেতুর উদ্বোধন থেকে ফেরা হলো না অহিদুল-মফিজুরের       স্বপ্ন হলো সত্যি       পদ্মাপাড়ের উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়ে যশোরেও       সাংবাদিক মিজানুরের পিতার ইন্তেকাল       জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের বাজেট বিষয়ক বিশেষ সাধারণ সভা       পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রীকে যবিপ্রবি পরিবারের ধন্যবাদ       অনুর্ধ্ব-২০ ভলিবল দলে যশোরের দু’জন       ব্যাটিংয়ে অখুশি সিডন্স       বড় পর্দায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন দেখলেন যশোরবাসী       কালিয়ায় ট্রলিচাপায় মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু      
গৃহবধূ রহিমাকে হত্যার কথা স্বীকার স্বামীর
কাগজ সংবাদ
Published : Monday, 23 May, 2022 at 9:23 PM, Count : 131
গৃহবধূ রহিমাকে হত্যার কথা স্বীকার স্বামীর যশোর শহরের কাজীপাড়ার গৃহবধূ রহিমা খাতুনকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন স্বামী জাকির হোসেন। জবানবন্দিতে তিনি বলেন, রহিমা পরকীয়ায় আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন। নিষেধ করলে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করতেন। এ কারণে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে তাকে হত্যা করেছিল বলে জানিয়েছেন স্বামী জাকির হোসেন। সোমবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মঞ্জুরুল ইসলাম আসামির জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। জাকির হোসেন শহরের কাজীপাড়ার গোলাম সরোয়ারের বাড়ির ভাড়াটিয়া এবং বেনাপোল পোর্ট থানার মৃত ইমান আলীর ছেলে।
তিনি জানিয়েছেন, পেশায় ফেরিওয়ালা। সবজি ও মাছ বিক্রি করেন। রহিমাকে তিনি ভালোবেসে দ্বিতীয় বিয়ে করেছিলেন। বিয়ের পর থেকে জাকির ও তার স্ত্রী শহরের কাজীপাড়ার গোলাম সরোয়ারের বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতেন। রহিমা প্রায়ই রাত করে বাসায় ফিরতেন। মোবাইলে ফোন আসলে বাইরে গিয়ে কথা বলতেন। এতে জাকিরের সন্দেহ হয়। একদিন রহিমাকে শহরের গরিবশাহ মাজারের পাশে তার চাচাতো ভাইয়ের সাথে গলা জড়িয়ে বসে থাকতে দেখেন। এতে জাকিরের সন্দেহ আরও বেড়ে যায়। এসব নিয়ে সংসারে অশান্তি বেড়ে যায়।
২০২১ সালের ১২ ডিসেম্বর গভীর রাতে রহিমার মোবাইলে ফোন আসে। রহিমা তখন ফোন নিয়ে বাইরে গিয়ে কথা শেষ করে ঘরে আসেন। জাকির বাইরে যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে রহিমা ক্ষিপ্ত হয়ে মেঝেতে গিয়ে শুয়ে থাকেন। তখন রহিমার গলার ওড়না ধরে টান দিলে ফাঁস লেগে যায়। এরপর জাকির বেশকিছু সময় ওড়না টেনে ধরে রাখলে রহিমা মারা যান। তারপর তার লাশ কম্বল দিয়ে পেঁচিয়ে খাটে রেখে মোবাইল ফোন নিয়ে ঘরের বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে জাকির পালিয়ে যান।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০২১ সালের ১৬ মার্চ জাকিরের তালাবদ্ধ ঘর থেকে পঁচা গন্ধ পায় প্রতিবেশীরা। এরপর পুলিশে সংবাদ দিলে তালা ভেঙে ঘরে গিয়ে রহিমার লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় নিহত রহিমার খাতুনের আগের ঘরের ছেলে মণিরামপুরের খাটুরা গ্রামের হাসানুজ্জামান টুটুল বাদী হয়ে জাকির হোসেনকে আসামি করে কোতোয়ালি থানায় হত্যা মামলা করেন। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর তদন্ত কর্মকর্তা এসআই তাপস মন্ডল জাকির হোসেনকে আটক করে সোমবার আদালতে সোপর্দ করেন। 




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft