দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: হত্যা চেষ্টার অভিযোগে ছেলের বিরুদ্ধে মামলা       যশোরে ইয়াবসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক       ক্ষেমতা যট্টুক, তট্টুকই দেকানো ভালো!       আফগানিস্তানে আকস্মিক বন্যা       যশোরে স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা       খুলনার লোটাস এন্টারপ্রাইজ প্রীতি খাদ্য নিয়ন্ত্রকের, চরম অসন্তোষ       হয়রানির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন       চৌগাছায় বেশি দামে তেল বিক্রি করায় ২৫ হাজার টাকা জরিমানা        কেশবপুরে পল্লী চিকিৎসক সুব্রত হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন        ‘দেশের অগ্রযাত্রায় অংশ নিয়ে ঋণ শোধ করতে হবে’      
পদ্মাপাড়ের উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়ে যশোরেও
স্বপ্না দেবনাথ
Published : Sunday, 26 June, 2022 at 1:17 AM, Count : 190
পদ্মাপাড়ের উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়ে যশোরেওগর্ব, সম্মান আর আত্মমর্যাদার প্রতীক বাঙালির বহুল কাঙ্খিত পদ্মাসেতুর উদ্বোধনের মাহেন্দ্রক্ষণের সাক্ষী হতে পেরে প্রাণের অবগাহনে ভেসে যায় জেলাবাসী। শনিবার সকাল থেকেই রাজনৈতিক কর্মসূচির পাশাপাশি ছিল জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের বর্ণিল সব আয়োজন। এক কথায় আনন্দ, উৎসব আর উচ্ছ্বলতায় মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে দেশের প্রথম শত্রুমুক্ত জেলা যশোর শহরও পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের খুশিতে ছিল উদ্বেলিত।  
‘দূরে থেকেও কাছে’ উপলব্ধিতে জেলাবাসীকে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের ঐতিহাসিক ক্ষণের প্রত্যক্ষ স্বাক্ষী হওয়ার সুযোগ করে দিতে যশোর টাউনহল ময়দানে হয় মিলনমেলা। যেখানে বর্ণাঢ্য আয়োজনে জেলা প্রশাসন পদ্মাসেতুর সরাসরি উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখানোর ব্যবস্থা করে। সকাল ৯টা থেকে বর্ণিল সাজ আর বাজনার তালে তালে শিশু থেকে বৃদ্ধ-সব বয়সী মানুষ হাজির হন এ ময়দানে।
সবার মাঝে টানটান উত্তেজনা। ছয় বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে এলা সেই কাঙ্খিত সময়। ঘড়ির কাটায় ঠিক সকাল ১০টা ৪৮ মিনিট ৫৮ সেকেন্ড, বক্তৃতা দিতে উঠলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু তনয়া পদ্মাসেতুর স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর ভরাটকণ্ঠ বিমোহিত করে পদ্মাপাড়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আসা মানুষ, দেশি-বিদেশি অতিথিসহ গোটা দেশবাসীকে। তিনি স্বপ্ন পূরণের এই মাহেন্দ্রক্ষণে স্মরণ করলেন তাঁকে সাহস ও অকুণ্ঠ সমর্থন দিয়ে যাওয়া প্রিয় দেশবাসীকে। বললেন, ‘এই জনগণই আমার সাহসের ঠিকানা, এই জনগণকে আমি স্যালুট জানাই’। দেশের প্রতিটি নাগরিক যে এ মহাঅর্জনের সমান ভাগীদার প্রধানমন্ত্রী তা আরও একবার সকলকে মনে করিয়ে দিলেন।
পিন পতন নিরবতায় যশোর টাউন হল ময়দানে জেলা প্রশাসনের দেয়া এলইডি স্ক্রিনে যখন প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা দেখাচ্ছিল আর সেখানকার লাখো মানুষের গগনবিদারী স্লোগান ও বিজয়োল্লাস ভেসে আসছিল তখন যেনো একখন্ড পদ্মাপাড় বাস্তবে হাজির হয়েছিল যশোরে। স্থানীয় মানুষের সাথে ঐতিহাসিক এই মুহূর্তকে স্মৃতির মণিকোঠাঁয় সাজিয়ে রাখতে ময়দানে হাজির ছিলেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক হুসাইন শওকত, মুক্তিযুদ্ধকালীন বৃহত্তর যশোরের মুজিব বাহিনীর প্রধান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী হোসেন মনি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, পৌর মেয়র হায়দার গণি খান পলাশ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, যশোর সরকারি এমএম কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার, যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আক্তারুজ্জামান, জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট রবিউল আলম, দৈনিক কল্যাণ সম্পাদক একরাম-উদ-দৌল্লা, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হারুন অর রশীদ, প্রবীণ রাজনীতিক আমিরুল ইসলাম রন্টু প্রমুখ।
প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সাথে সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে যশোরেও ঠিক বেলা ১২টায় বেলুন এবং পায়রা উড়ান উপস্থিত বিশিষ্ঠজনেরা। উদ্বেধনী অনুষ্ঠান শেষে ঘণ্টা কয়েকের বিরতির পর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শুরু হয় বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠান শুরু হয় পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে রেকর্ড করা বিশেষ গানের মাধ্যমে। জেলার বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের ৫০ জন নির্বাচিত শিল্পীকে নিয়ে যশোরের সন্তান রেজা মন্ডলের কথায় এবং সুকুমার দাসের সুরে গানটি প্রস্তুত হয়েছে। পদ্মাসেতুর গান শেষে হয় যশোরের থিমসং। এর পর দুটি গান ও নৃত্য উপভোগের সুযোগ পান আগত দর্শক। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শেষ অংশে দেশে জনপ্রিয়তা অর্জনকারী যশোরের দুই শিল্পী দেবলিনা সুর এবং ইমরান খন্দকার গান পরিবেশন করেন। রাত ৯টায় সাংস্কৃতিক আয়োজনের পর্দা নামে।
রাত ১০ টার দিকে সবথেকে বড় চমকের মাধ্যমে শেষ হয় সমগ্র আনুষ্ঠানিকতা। উৎসবের আনন্দ ঝিলিক সর্বস্তরে ছড়িয়ে দিতে রাতে জেলা প্রশাসন আয়োজন করে আতশবাজির আলোকচ্ছটার। পাশাপাশি যশোর কালেক্টরেট ভবনের নতুন আর্কিটেকচারাল লাইটিংসহ মোহনীয় রূপের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় এ সময়।  ‘গর্ব, সম্মান ও মর্যাদার প্রতীক’  পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিন যশোরের গর্ব শত বছরের ঐতিহ্য বহনকারী কালেক্টরেট ভবনের এ নতুন ডিস্লের সাথে আতশবাজির ঝলকানিতে এক অনবদ্য সময়ের সাক্ষী হয় শহরবাসী।  
এদিকে, কাঙ্খিত পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর যশোরে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা দিয়ে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর ঢাকঢোলের আওয়াজ আর ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ সেøাগানে সেøাগানে মুখরিত ছিল যশোর শহর। যশোর জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে যশোর কোতোয়ালি থানার সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী রায়হান, মেহেদী হাসান মিন্টু, হুমায়ুন কবির কবু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনির, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ হারুন-অর-রশিদ, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক শেখ আতিকুর রহমান বাবু, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক কাজী আবদুস সবুর হেলাল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মুন্সি মহিউদ্দীন আহমেদ, শিল্প ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু সেলিম রানা, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ফারুক আহমেদ কচি, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সুখের মজুমদার, উপ-দপ্তর সম্পাদক অহিদুল ইসলাম তরফদার, উপ-প্রচার সম্পাদক লুৎফুল কবির বিজু, নির্বাহী কমিটির সদস্য মারুফ হোসেন খোকন, আসাদুজ্জামান মিঠু, সামির ইসলাম পিয়াস, প্রভাষক মোয়াজ্জেম হোসেন, উপদেষ্ঠা আবুল হোসেন খান, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফসানা মিমি, শাহানা আক্তার, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক বিলকিস সুলতানা সাথী, সদস্য শিমু চৌধুরি, জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য হাজেরা পারভীন, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিফাতুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল ইসলাম, সাবেক মানব উন্নয়ন সম্পাদক আরাফাত রহমান বাসিদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট যশোর জেলার সহ-সভাপতি মীর আজাদ।
বিকেশে যশোর পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে এক বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালি বের হয়। পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারের নেতৃত্বে র‌্যালিটি তার কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালিতে পুলিশ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ছাড়াও রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন।  
অপর দিকে যশোর জেলা যুব মহিলা লীগের উদ্যোগে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। জেলা কমিটির সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনিন সোনালীর নেতৃত্বে এই আনন্দ শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, জেলা যুব মহিলা লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লিজা খান, সহ-সভাপতি নাজমা ইমাম।
একইসাথে জেলা যুবলীগের উদ্যোগে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে সন্ধ্যায় দড়াটানায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft