আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
শিরোনাম: আট বছর পর জট খুললো ভোটের        নতুন দাম কার্যকর হতে সময় লাগবে!       আগামীর সম্ভাবনা ফুটিয়ে তুললো কন্যা শিশুরা       যশোরে গ্যাসের দোকানে ভোক্তার তদারকি       অস্ত্রসহ আটক অনিক রিমান্ডে       কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় একজনের ফাঁসি, দু’জনের যাবজ্জীবন       রূপসায় ট্রলারডুবি, নিখোঁজ মাহাতাবের মরদেহ উদ্ধার        ভবিষ্যতে সম্প্রীতির বন্ধন অটুট থাকবে: খাদ্যমন্ত্রী       জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উপলক্ষে মধুখালীতে র‌্যালি ও আলোচনা সভা       কারাভোগ শেষে স্বদেশের পথে ১৩৫ ভারতীয় জেলে      
মিস্টির চাইতি ঠুঙার দাম বেশি!
Published : Saturday, 27 August, 2022 at 9:40 PM, Count : 264
কুটিকালতে এট্টু মিস্টির দিকি ঝোক ছিলো। আহারে সেই আগের দিনির মিস্টির কতা মনে পড়লিই জিবেয় পানি আসে। তকন এট্টা খালি মনে হইতো আরাট্টা খায়। মিস্টির সেই স্বাদ একন দিন দিন ভাটির দিকি। সেই ময়রাও একন নেই, আর খাটি দুধির ছানা বদলে একন সব সুজির দানা!
কয়দিন আগে একজাগাত্তে আশা সুকি কয়ডা কালোজাম মিস্টি কিনিলাম। বাড়ি নিয়ে যাইয়ে খাতি যাইয়ে দেকি কালোজামের মদ্দি গুটা গুটা কি যেন ভরা। ইরাম কান্ড তো জম্মেও কোন দিন দেকিনি। পরদিন সেই দুকানে যাইয়ে মিস্টির কতা পাড়লাম। কলাম বাপুরে কিনতি আইলাম মিস্টি, তার মদ্দি দানা পানা কি সব পুইরে দিচাও। আমার কতা শুইনে দুকানদার কলে, চাচা তুমারে তো মদ্দা মিস্টি দিচি, বুজদি পারো নি। আমি তো শুইনে থ’, মিস্টির মদ্দি আবার মেচি মদ্দা কনতে আইসলো। আমি তারে কলাম কি কতি চাস, এট্টু ঢক কইরে ক’দিনি। দুকানদার কলে, যে মিস্টির মদ্দি বিচি থাকে সিডা মদ্দা মিস্টি। আমি তারে আর ঘাটালাম না, কি কতি কি কবানে আবার কোন গুপ্ত কতা বাইরোয় পড়ে সেই ভয়তি!
তেবে কাল এক বড় দুকানতে মিস্টি কিনে আবার হ্যারেজ খাইয়ে গিলাম। মিস্টির দুকানের বাহারি ঠুঙা দেইকে বুকোয় পড়লাম। এক কেজি মিস্টি নেলে তিনশ আশি টাকা। তাও নাই কুড়ি টাকা কেজিতে কম নেচে। বাড়ি নিয়ে যাইয়ে মিস্টি খাতি যাইয়ে কিরাম এট্টা সন্দো মনে হইলো। মনে হচ্চে ওজনে এট্টু কম কম। মনের মদ্দি খটকা লাইগলো। বাড়ির পাশে মুদি দুকানে নিয়ে গিলাম, তারা ডিজিটাল পাল্লায় মাইপে দেলে। কাটায় কাটায় এক কেজি। আমার মনের সন্দো বুজদি পাইরে মুদি দুকানদার ভাইপো কলে, চাচা তুমি যিডা আন্দাজ করিচো সিডা সটিক। আমি কলাম চোকির সুমকিতো মাপলি এক কেজিই হলো! ভাইপো কলে বাড়ি যাইয়ে মিস্টি গামলা বাটিতি নামায়ে খালি ঠুঙাডা নিয়ে আইসো, সব হেজেমানে কইরে দিচ্চি। মিস্টি রাইকে খালি ঠুঙা জুড়া পলিথিনসহ মাইপে পালাম পিরায় দুইশ’ গিরাম। পরে ক্যালকুলেটার টিপে দেকলাম ৩৮০ টাকা কেজি হলি গিরাম পড়ে ৩৮ পয়সা। সেই হিসেবে ২০০ গিরামের দাম হচ্চে ৭৬ টাকা। এক কেজি মিস্টি কিনতি যাইয়ে যদি ৭৬ টাকা দিয়ে ঠুঙা কিনতি হয় তালি যাবডা কনে কওদিনি বাপু!
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft