দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: আট বছর পর জট খুললো ভোটের        নতুন দাম কার্যকর হতে সময় লাগবে!       আগামীর সম্ভাবনা ফুটিয়ে তুললো কন্যা শিশুরা       যশোরে গ্যাসের দোকানে ভোক্তার তদারকি       অস্ত্রসহ আটক অনিক রিমান্ডে       কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় একজনের ফাঁসি, দু’জনের যাবজ্জীবন       রূপসায় ট্রলারডুবি, নিখোঁজ মাহাতাবের মরদেহ উদ্ধার        ভবিষ্যতে সম্প্রীতির বন্ধন অটুট থাকবে: খাদ্যমন্ত্রী       জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উপলক্ষে মধুখালীতে র‌্যালি ও আলোচনা সভা       কারাভোগ শেষে স্বদেশের পথে ১৩৫ ভারতীয় জেলে      
সংঘবদ্ধ চক্রের নানামুখি হুমকি, থানায় অভিযোগ
মণিহার কমপ্লেক্স মার্কেট থেকে বৈধ দোকানীদের উচ্ছেদ চেষ্টা
বিশেষ প্রতিনিধি
Published : Wednesday, 21 September, 2022 at 9:28 PM, Count : 461

মণিহার কমপ্লেক্স মার্কেট থেকে বৈধ দোকানীদের উচ্ছেদ চেষ্টাযশোরের মণিহার কমপ্লেক্স মার্কেট থেকে অবৈধভাবে বৈধ দোকানীদের উচ্ছেদ চেষ্টা চলছে। সন্ত্রাসী তৎপরতা চালিয়ে দোকানে তালা ঝুলিয়ে দেয়াসহ নানামুখি হুমকি ধামকির অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগীরা। এ ব্যাপারে থানা পুলিশে শরনাপন্ন হয়েছেন অনেক দোকানী। তারা  দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
থানায় দেয়া লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, খোদ এস ইসলাম এন্ড সন্স লিমিটেড ও মণিহারের প্রজেক্ট ম্যানেজার সাইদুল হকের মাধ্যমে লেনদেন করে এবং দোকান নিয়ে ব্যবসা করলেও তারা এখন পথে পথে ঘুরছেন। ওই ব্যবসায়ীরা বৈধ পজিশন গ্রহিতা কিংবা তাদের ওয়ারেশগণের মাধ্যমে পজিশন কিনে ব্যবসা পরিচালনা করতে গিয়ে পড়েছেন বিপদে। ৫ থেকে ৭ জন দোকানীর উপর চড়াও হচ্ছে একটি চক্র। মণিহার কমপ্লেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মিঠু, বারান্দী মোল্লাপাড়ার আব্দুর রশিদ, ঢাকা রোডের ফারুক, বেজপাড়া আনছার ক্যাম্প এলাকার তোফাজ্জেল হোসেন, শামীম হোসেন, ইমরান হোসেন, সিটি কলেজপাড়ার হাবিবুল্লাহ বাবু, শক্তিসহ আরো ৫/৭ জনের একটি চক্র যথেচ্ছা আচরণ করে বৈধ ভোগদখলে থাকা ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় নাজির  শংকরপুরের পিয়ারী মোহন রোডের মৃত আব্দুল মালেকের ছেলে এবিএম কামরুজ্জামান পলাশ অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, মণিহার কমপ্লেক্সের পূর্ব পাশের জিএফ ও ই ৩, ৪ ও ১৯ নাম্বার দোকান কেনা পজিশন হিসেবে তার নামে রয়েছে। এস ইসলামের কাছ থেকে প্রভাতী,  সুফিয়া এবং হাফিজা নামে ৩ জন প্রথম পজিশন নেন। তাদের কাছ থেকে জীবদ্দশায় সাংবাদিক এসএম হাবিবুল্লাহ হাবিব পজিশন কেনেন। তার মৃত্যুর পর ছেলে মেয়ের ভোগদখলীয় দোকান তিনটি পজিশন কিনে ব্যবসা করছিলেন  কামরুজ্জামান পলাশ। কিন্তু সম্প্রতি তাদের দোকানে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে উচ্ছেদ ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। ওই ঘরের ভাড়াটিয়া ইমরান, শক্তি ও হাবিবুল্লাহ বাবু ওই তিনটি ঘর অবৈধ দখল চেষ্টা করছে। ৩০ লাখ টাকায় প্রয়াত এসএ হাবিবুল্লাহর ছেলে আতিকুর রহমান ও মেয়ে হোসনে আরা মিনুর কাছ থেকে কেনেন পলাশ। কিন্তু গত ৭ সেপ্টেম্বর অবৈধভাবে দখল করে ওই চক্রটি। 
একইসাথে ওই চক্রের মধ্যে জিয়াউল ইসলাম মিঠুু,  রশিদসহ ৫/৭ জনের বিরুদ্ধে থানায় আরো একটি অভিযোগ করেছেন মোখলেছুর রহমান নামে এক বৃদ্ধ দোকানী। তিনি বলেছেন, তিনি ১৯৮৩ সাল থেকে মণিহার কমপ্লেক্স মার্কেটে পজিশন কিনে প্রথমে মহেশপুর নামে বইয়ের দোকান ও পরে মোবাইল ওয়ান নামে দোকান পরিচালনা করে আসছিলেন। দোকান নাম্বার জিএফই-৫।  মণিহারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিয়াউল হক মিঠু,  বাবা সিরাজুল ইসলাম মারা যাওয়ার পর ভাড়া আদায় করে আসছেন  মোখলেছুরের কাছ থেকে। সর্বশেষ গত ১২ সেপ্টেম্বর ওই দোকানের ভাড়া প্রদান করেন মোখলেছুর রহমান। গত ১৭ সেপ্টেম্বর  দুপুর ১ টায় জিয়াউল হক মিঠু মোখলেছুরের দোকানে অবৈধভাবে তালা ঝুলিয়ে দেন। এ ব্যাপারে তিনি যথাযথ বিচার দাবি করেছেন।  
তিনি দাবি করেছেন, সকল বৈধ কাগজপত্র তার হালনাগাদ রয়েছে। অথছ পেশি শক্তি খাটিয়ে যথেচ্ছা করেছেন। 
এদিকে এবিএম কামরুজ্জমানের হালনাগাদ সকল বৈধ কাগজপত্র, ভাড়া রশিদ পজিশন কেনার ৩০ লাখ টাকার কাগজপত্র থাকা সত্বেও তাকে উচ্ছেদ করার সড়যন্ত্র চলছে। তিনিসহ বহু দোকানীকে হুমকি দেয়া হচ্ছে বলেও তার অভিযোগ। এ ব্যাপারে তিনি পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। 





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft