শিরোনাম: যশোর আদালতে আসামি আত্মসমর্পণ কার্যক্রম শুরু       হতাশায় ১০ হাজার খামারি       যশোরে করোনায় আরও একজনের মৃত্যু       খুলনা বিভাগে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ       মাল্টাগ্রাম হবে বলরামপুর        বলরামপুরকে ‘মাল্টাগ্রাম’ করার উদ্যোগ        ‘আমি একাই অফিস চালাবো’       ঝিনাইদহে আরও ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত       ঝিনাইদহে ৩০ লাখ টাকার ওষুধসহ একজন আটক        যশোরে চলমান রয়েছে ইপিআই কার্যক্রম      
স্বাস্থ্যবিধি মানায় শৈথিল্য যশোরের অধিকাংশ ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে
মিনা বিশ্বাস :
Published : Sunday, 31 May, 2020 at 12:34 AM, Update: 31.05.2020 12:36:19 AM
স্বাস্থ্যবিধি মানায় শৈথিল্য যশোরের অধিকাংশ ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানেস্বাস্থ্যবিধি মেনে বিপনীবিতান ও দোকানপাট পরিচালনা করার কথা থাকলেও তা মানার ক্ষেত্রে শিথিলতা দেখা দিয়েছে যশোরে। ১০ মে প্রায় দু’মাস পর সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পর সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মানায় আট দিনের ব্যবধানে প্রশাসনের নির্দেশে তা আবারও বন্ধ করা হয়। ২৮ মে পুণরায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহ খোলার পর শহরের বড় বড় দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেও তুলনামূলক মাঝারি ও ছোট দোকানে তা মানা হচ্ছে না। শহরের সর্বত্রই এমন বিপরীত চিত্র দেখা গেছে।
শহরের বিভিন্ন মোটরপার্টসের দোকান, ছোট-বড় বেকারি, ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যর দোকান, শো’পিস ও খেলনার দোকান, হাটখোলা রোড ও চুড়িপট্টির পাইকারি ও খুচরা বিভিন্ন দোকানে গাদাগাদি করে বেচাকেনা করার দৃশ্য দেখা যায় শনিবার। এছাড়া কালেক্টরেট মার্কেট, ইনস্টিটিউট মার্কেট, ইডেন মার্কেটসহ শহরের বিভিন্ন দোকানে স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যায়নি। কিছু দোকানে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সচেতনতামূলক পদক্ষেপ দেখা গেলেও অধিকাংশ দোকানে সাবধানতা অবলম্বন করা হচ্ছে না। সে সাথে নেই সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের ক্ষেত্রেও কোনো তৎপরতা।
অন্যদিকে সিটি প্লাজা, জেস টাওয়ার, মুজিবসড়কের বিপনীবিতান, চৌরাস্তা, কাপুড়িয়া পট্টির বিভিন্ন অভিজাত দোকানে প্রবেশের পথে পাহারাদার বসিয়ে স্যানিটাইজার ব্যবহার ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এসব দোকানের বাইরে ও ভেতরে স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে দেখা যায়। সেসাথে এসব এলাকার বিপনীবিতানের বিভিন্ন দোকানে কেনাকাটার সময়ে দূরত্বের ক্ষেত্রেও কঠোরভাবে নিয়ম মানা হচ্ছে।
দোকানে প্রবেশের পথে বেসিন, সাবান, পানি দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা দেখা গেছে চুড়িপট্টির বিপি স্টোরে। এ রহিম ট্রেডার্সেও দেখা মেলে সামাজিক দূরত্ব মানতে। অন্যদিকে মুজিব সড়কের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজের সর্বত্রই স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সচেতনতা দেখা যায়। একইভাবে নিয়ম মানা হয় এইচএমএম রোডের বিভিন্ন দোকানে। অন্যদিকে, এইচএমএম রোডে ভিন্ন চিত্রও দেখা যায়। সেখানে বিভিন্ন মাঝারি ও ছোট দোকানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বেচাকেনা করতে দেখা যায়নি। এমনকি এসব দোকানের বিক্রেতা কিংবা ক্রেতারা দূরত্ব বজায় রাখছেন না। একইভাবে কালেক্টরেট মার্কেট, ইনস্টিটিউট মার্কেটের মাঝারি ও ছোট ছোট দোকানে স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যায়নি।
এ বিষয়ে ব্যবসায়ী নেতা মীর মোশাররফ হোসেন বাবু বলেন, ‘মাইকিং করে লিফলেট দিয়ে আমরা প্রথম থেকেই চেষ্টা করে যাচ্ছি এ বিষয়ে মানুষকে সচেতন করতে। কিন্তু বিক্রেতা কিংবা ক্রেতা কেউই নিয়ম মানছেন না। আমার মনে হয় এক্ষেত্রে প্রশাসন জোরালো ভূমিকা পালন করতে পারে।’
এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি। তবে আমার মনে হয় এক্ষেত্রে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা এবং জরিমানার উদ্যোগ সফলতা নিয়ে আসবে।’
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ বলেন, ‘আমরা নিয়মিত মাইকিংয়ের মাধ্যমে সচেতনতা তৈরির চেষ্টা করে যাচ্ছি। তাছাড়া মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে জরিমানারও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আশা করছি আমরা এ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবো।’





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft