gramerkagoj
বৃহস্পতিবার ● ১৮ জুলাই ২০২৪ ৩ শ্রাবণ ১৪৩১
gramerkagoj
এবার কলকাতায় মুক্তি পেল তুফান
প্রকাশ : শুক্রবার, ৫ জুলাই , ২০২৪, ০২:৫৭:০০ পিএম
বিনোদন ডেস্ক:
GK_2024-07-05_6687b236a066f.jpg

শাকিব-মিমি অভিনীত তুফান সিনেমা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মুক্তি পেয়েছে। আজ শুক্রবার (৫ জুলাই) মুক্তি পেল কলকাতায়। পশ্চিমবঙ্গের মেট্রোরেল থেকে বিলবোর্ডে ঝুলছে ‘তুফান’ সিনেমার পোস্টার।
তার আগে শহরের সাউথ সিটি মলের আইনক্স সিনেমা হলে হয়ে গেছে তুফানের প্রিমিয়ার শো। কলকাতার নিয়ম অনুযায়ী ব্লকবাস্টার মুভির প্রিমিয়ার শো হয়ে থাকে বৃহস্পতিবার। তুফানেও অন্যথা হলো না।
এদিন বেছে নেওয়ার কারণ শুক্রবার সপ্তাহন্ত এবং শনি ও রোববার সাপ্তাহিক ছুটি। ফলে এ দিনগুলোয় শহরবাসীর অনেকেই ছুটির মেজাজে হলমুখী হয়ে থাকেন। এখন দেখার বিষয় শহরবাসীর মনে কতটা তুফান তুলতে পারেন শাকিব-মিমির জুটি।
তবে প্রিমিয়ার শোর আগে দর্শকদের উদ্দেশে শাকিব বলেছেন, বাংলা সিনেমা এখন আর শুধুমাত্র বিনোদনের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। কৃষ্টি, কালচার, সভ্যতার কথা বলে। বাংলা সিনেমা একটা জাতির কথা বলে। সিনেমা জাতিকে তুলে ধরে। দুই বাংলার যৌথ উদ্যোগে বাংলা সিনেমা আর পিছিয়ে নেই। সব মিলিয়ে দর্শকদের আহ্বান জানান তুফান দেখার।
তিনি বলেন, আমি জানি আপনারা শুধু তুফানকে সাপোর্ট করতে আসেননি। এসেছেন বাংলা সিনেমাকে সাপোর্ট দিতে। এতক্ষণ অপেক্ষা করেছেন, ধৈর্য ধরে বসেছিলেন, আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাই এবং আমি কৃতজ্ঞ।
এরপরই অভিনেতা বলেছেন, শুধু বাংলাদেশ নয়, আমেরিকা বা কলকাতা যেখানেই আমার প্রোগ্রাম থাকে, আমি সেখানে সব সময় ফিল করি যারা বাঙালি, আমরা একটা পরিবার। উই আর সেম। সেম ফ্যামিলি। আমরা একই পরিবারের মানুষ। শাকিব এ কথা বলা মাত্রই দর্শক ও সাংবাদিকদের মধ্যে হাতাতালির বন্যা বয়ে যায়।
এরপরই শহরবাসীর উদ্দেশে অভিনেতা বলেছেন, স্টোরিটা শুরু হয়েছে কোলাবারেশন থেকে। দুই বাংলার কোলাবারেশন। দুই বাংলার বড় প্রযোজকদের যৌথ উদ্যোগে। আমার কাছে বাংলা আলাদা নয়। আমি কখনোই বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গকে আলাদা করতে পারি না। আমার যেমন পছন্দের শহর ঢাকা তেমন পছন্দের শহর কলকাতা। আমাদের একটাই পরিচয় হওয়া উচিত, আমরা বাঙালি। আমরা সেটা ফিল করি। অর্থাৎ এ ধরনের যৌথ প্রযোজনা বা কোলাবারেশন কাজ করে কিন্তু বাংলা চলচ্চিত্রের উন্নয়নের হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, বাংলা সিনেমা যাতে গোটা বিশ্বের ছড়িয়ে দেওয়া যায়, তার জন্য আমাদের সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। আমরা সবাই জানি গোটা বিশ্বে ৪০ কোটি বাঙালি রয়েছেন। অর্থাৎ সংখ্যার দিক থেকে আমরা কিন্তু পিছিয়ে নেই। এর চাইতে ভাষাগত দিক থেকে যদি বলি, অনেক কম পপুলেশন নিয়ে দক্ষিণ ভারতের বিভিন্ন রাজ্য বা পাঞ্জাবি তাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিও কিন্তু অনেক দূর এগিয়ে গেছে। ফলে আমরা বাঙালিরা কেন পিছিয়ে থাকবো? এ ধরনের যৌথ প্রযোজনাগুলোই জানান দিচ্ছে আমরা কিন্তু আর পিছিয়ে নেই।
এরপরই মিমির দিকে তাকিয়ে শাকিব বলেন, বাংলার সুপারস্টার, বিউটিফুল মিমি চক্রবর্তী। তার সঙ্গে কাজ করে ভালো লেগেছে। মিমিও বলেন, আমি সবার সঙ্গে কাজ করে মজা পাই না। আমার সহকারী অভিনেতার থেকে অভিনয়ের জন্য ওয়েব খুঁজি। সেটা যখন পাই তখন কাজ আরও ভালো হয়, যা আমি শাকিবের থেকে পেয়েছি। শাকিব অবশ্যই বড় অভিনেতা।

আরও খবর

🔝