gramerkagoj
বৃহস্পতিবার ● ১৮ জুলাই ২০২৪ ৩ শ্রাবণ ১৪৩১
gramerkagoj

❒ ন্যাটো সম্মেলনে বাইডেনের হুঁশিয়ারি

মানচিত্র থেকে ইউক্রেনকে মুছে ফেলতে চায় পুতিন
প্রকাশ : বুধবার, ১০ জুলাই , ২০২৪, ১০:৪৯:০০ এএম , আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই , ২০২৪, ০১:২১:৫৯ পিএম
আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
GK_2024-07-10_668e12e602a75.jpg

ন্যাটোর ৭৫তম শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনকে মানচিত্র থেকে মুছে ফেলতে চাচ্ছেন এবং তার আগ্রাসন ইউক্রেনে থামবে না। তাই ইউক্রেনই পুতিনকে থামাতে পারে এবং তা করবেই।
মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ন্যাটোর ৭৫তম শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।
বাইডেন বলেন, পুতিন ইউক্রেনকে সম্পূর্ণরূপে পরাস্ত করতে এবং ইউক্রেনের সংস্কৃতি ও গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে চান।
বাইডেনের এই বক্তব্য ওয়াশিংটন ডিসির রোনাল্ড রিগ্যান ইনস্টিটিউটে ন্যাটোর সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেওয়া হয়। এখানে ১৯৪৯ সালে ন্যাটো প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই সম্মেলন বাইডেনের রাজনৈতিক জীবনের জন্যও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল, কারণ সম্প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে নির্বাচনি বিতর্কে ভালো করতে না পারায় তিনি চাপের মুখে আছেন। নিজের দলের সমর্থকদের বিশ্বাস ফেরাতে এই সম্মেলনে বাইডেনকে প্রমাণ করতে হতো যে, তিনি এখনো নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা রাখেন।
বাইডেন ন্যাটোর সদস্য দেশগুলোর আইনপ্রণেতাদের প্রশংসা করে বলেন, ন্যাটো আগের চেয়ে এখন আরও শক্তিশালী। তিনি উল্লেখ করেন, ন্যাটোর ৩২ সদস্য দেশের মধ্যে ২৩টি দেশ নিজেদের মোট দেশজ উৎপাদনের ২ শতাংশ প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয় করতে পারছে। এভাবে তিনি ট্রাম্পের সমালোচনারও জবাব দেন। ট্রাম্প বলেছিলেন, ন্যাটোর যেসব সদস্য দেশ তাদের প্রতিরক্ষা খাতে যথাযথ ব্যয় করতে পারে না, সেসব দেশের জন্য যুক্তরাষ্ট্র এগিয়ে আসবে না।
বাইডেন আরও ঘোষণা দেন- যুক্তরাষ্ট্র জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, রোমানিয়া ও ইতালির সঙ্গে মিলে ইউক্রেনের জন্য আগামী কয়েক মাসের মধ্যে আরও কৌশলগত আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা পাঠাবে।
এদিকে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রতিনিধি পরিষদের আইনপ্রণেতারা ও সিনেট সদস্যরা ওয়াশিংটনে পৃথক বৈঠক করেছেন। এ বৈঠকে বাইডেনকে প্রার্থী রাখা নিয়ে মতবিরোধ বিদ্যমান ছিল। বাইডেন বৃহস্পতিবার একক সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে, যা নিয়ে সবার নজর এখন সেখানে।
ন্যাটো সম্মেলনে বক্তব্যে বাইডেন ন্যাটোর গুরুত্ব ও আন্তর্জাতিক স্থিতিশীলতার ওপর জোর দেন এবং ইউক্রেনকে সমর্থনে অটল থাকার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন।
সূত্র: গার্ডিয়ান

আরও খবর

🔝