শিরোনাম: দুমড়ে মুচড়ে গেলেও অক্ষত রয়েছেন যাত্রীরা        দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২০, শনাক্ত ২২৭৩       কুয়েতে পাপুলের মামলার রায় ২৮ জানুয়ারি       শরণখোলায় ক্ষতিগ্রস্থ ৫৬ পরিবারের মাঝে চেক বিতরণ       করোনায় মারা গেলেন সুদানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী       মাগুরায় সড়ক দুঘটনায় মোটরসাইকেলের দুই অরোহী নিহত       আলী যাকেরের মৃত্যুতে ওবায়দুল কাদেরের শোক       লিবিয়া থেকে ১৫৭ বাংলাদেশি ফিরেছেন        নাটোর পৌর এলাকার ২নং ওয়ার্ডে শতভাগ মাস্ক ঘোষণা       পদ্মাসেতুর ৫৮৫০ মিটার দৃশ্যমান      
স্ত্রীর পরকীয়ায় খুন হলেন মান্নাত
আটক চারজনকে নিয়ে পুলিশের সংবাদ সম্মেলন
বিশেষ প্রতিনিধি
Published : Monday, 26 October, 2020 at 9:25 PM, Update: 26.10.2020 9:28:12 PM
আটক চারজনকে নিয়ে পুলিশের সংবাদ সম্মেলনযশোরের চাঞ্চল্যকর স্কেভেটর চালক ইসরাফিল হোসেন মান্নাত (৪২) হত্যাকান্ডটি পরকীয়ার জের ধরেই সংঘটিত হয়েছে। স্ত্রীর পররকীয়া প্রেমিক ও তার ভগ্নিপতি শাহ আলমের পরিকল্পনা ও হুকুমে হত্যা মিশনে অংশ নেয় সাতজন। এদের মধ্যে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।  
আটকরা হচ্ছে যশোরের মাহিদিয়া গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে আল আমিন, পুরাতনকসবা কাঁঠালতলা নান্টুর বাগান এলাকার আবু তাহেরের ছেলে রিফাত, সুজলপুরের আব্দুর রশিদের ছেলে রায়হান শেখ ও শফিকুল ইসলামের ছেলে নয়ন হোসেন। এরা উঠতি বয়সী দুর্বৃত্ত। তাদের দখল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে হত্যায় ব্যবহৃত লোহার পাইপ, ইট ও মোটরসাইকেল। এব্যাপারে ২৬ অক্টোবর দুপুরে ব্রিফিং করে বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন।
২৩ অক্টোবর রাতের যেকোনো সময়ে যশোর শহরের কারবালা সিএন্ডবি রোডের পাশে হত্যা করা হয় মণিরামপুরে খেদাপাড়ার মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রহমানের ছেলে মান্নাতকে। তিনি যশোরের বকচর বিহারি কলোনির গোলাম মোস্তফার বাড়ি ভাড়া থাকতেন। ২৪ অক্টোবর ভোরে স্থানীয়দের খবরে মৃতদেহ উদ্ধারের পর তার মা আনোয়ারা বেগম কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। মামলাটি ক্লুলেস ও স্পর্শকাতর হওয়ায় পুলিশ সুপার মামলাটি তদন্তের জন্যে জেলা গোয়েন্দা শাখাকে দায়িত্ব দেন। 
পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরফ হোসেনের দিক নির্দেশনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অপরাধ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ক সার্কেলের তত্ববধানে ডিবির পরিদর্শক মাসুম কাজীর নেতৃত্বে তদন্ত এগিয়ে চলে। ডিবির এস আই শামীম, মফিজুল ইসলাম, পিপিএম, নূর হোসেনসহ কারও কয়েকজন অফিসার অভয়নগর ও যশোর সদরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ঘটনায় জড়িত ওই চারজনকে আটক করেন এবং হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত সরঞ্জাম উদ্ধার করেন। 
আটককৃতদের স্বীকারোক্তিতে হত্যার বিষয়ে পুলিশ সুপার ব্রিফিংয়ে জানিয়েছেন, নিহত মান্নাতের সাথে ভগ্নিপতি শাহ আলমের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল তার স্ত্রীর। এনিয়ে গোলযোগের জের ধরে শাহ আলম তাকে হত্যার পরিকল্পনা করে। আটককৃত চারজন ছাড়াও হত্যায় আরও তিনজন জড়িত। হত্যার পরিকল্পনাকারী শাহ আলমসহ পলাতক অপর তিনজনকে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।আটক চারজনকে নিয়ে পুলিশের সংবাদ সম্মেলন
এদিকে, জেলা গোয়েন্দা শাখার ওসি সৌমেন দাশ জানিয়েছেন, নিহতের স্ত্রী শারমিন সুলতানা সুমি। আর শাহ আলম নিহতের ছোট বোনের স্বামী। ওই ভগ্নিপতির সাথে সুমি পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে দু’ সন্তানের জননী সুমি পালিয়ে ননদের স্বামীকে বিয়ে করেন। তাদের খোঁজ পেয়ে কোটচাঁদপুর এলাকার স্থানীয় পৌরসভার কাউন্সিলরের মাধ্যমে তাদেরকে তালাক করাতে বাধ্য করে মান্নাত। ওই সময় ভগ্নিপতি শাহ আলমকে মারপিট করা হয়। ওই আক্রোশে শাহ আলম তার পরিচিত উঠতি সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করে মান্নাতকে হত্যার পরিকল্পনা সাজায়। সেই মোতাবেক ২৩ অক্টোবর রাত ১২টায় শাহ আলমের গাড়ির চালক আল আমিনের মাধ্যমে কারবালা রোডে ডেকে আনা হয় মান্নাতকে। পরে ইটের আঘাতে হত্যা করে আসামিরা। আটক চারজনের কাছ থেকে ওই তথ্য মিলেছে বলে জানায় ডিবি।
প্রেস বিফ্রিং এ আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ডিএসবি তৌহিদুল ইসলাম, গোলাম রব্বানী, জামাল আল নাসের, অপু সরোয়ার, সহকারী পুলিশ সুপার (মণিরামপুর সার্কেল) শোয়েব আহম্মেদ খাঁন, নাভারণ সার্কেলের জুয়েল ইমরান, যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মনিরুজ্জামান ও ডিবির ইন্সপেক্টর মাসুম কাজী।






« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft