আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
শিরোনাম: হত্যা চেষ্টার অভিযোগে ছেলের বিরুদ্ধে মামলা       যশোরে ইয়াবসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক       ক্ষেমতা যট্টুক, তট্টুকই দেকানো ভালো!       আফগানিস্তানে আকস্মিক বন্যা       যশোরে স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা       খুলনার লোটাস এন্টারপ্রাইজ প্রীতি খাদ্য নিয়ন্ত্রকের, চরম অসন্তোষ       হয়রানির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন       চৌগাছায় বেশি দামে তেল বিক্রি করায় ২৫ হাজার টাকা জরিমানা        কেশবপুরে পল্লী চিকিৎসক সুব্রত হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন        ‘দেশের অগ্রযাত্রায় অংশ নিয়ে ঋণ শোধ করতে হবে’      
বারন দিলিও শোনে খিডা!
Published : Wednesday, 20 July, 2022 at 9:02 PM, Count : 145
আমাগের এক দাদা সেইরাম খানেয়ালা। তার যে বয়েস লোকে কয় মরার বয়েস পার হইয়ে বোনাসে চইলতেচে। বয়েস ভারী হইয়েচে কিন্তুক তার খাওয়ার মুক কমেনা। এই বয়েসেও সুমানে গোস্তের গামলা চুয়া কইরে দিতি পারে। তাও যে সে গোস্ত হলি হবে না, মুটা চবর না হলি তার আশ মেটেনা। কোনটোয় দাওয়োত খাতি গেলি গরু ছাগলের গোস্ত দুডো না চুরোয় ফেরে না।
মুরুব্বীগের মুকি শুনা দাদার যকন বিয়ে হইলো তকন পেত্তম শউর বাড়ি যাইয়ে বিয়ানবেলা খাতি বইয়েচে। দাদার শাকড়ি লাল আটার রুটি বানাচ্চে। সাতে বাড়ির খাসি মোরগের গোস্ত। দাদা খাতি খাতি বত্রিশকান রুটি টাইনে দেচে। দাদার শউর কান্ড দেইকে আকাটা মাইরে গেচে। তবু ভদ্দরতার খাতিরে আস্তের কইরে কচ্চে বাবা রুটি কি আর আনবো? দাদা কইলো যদি থাকে তালি আর খান কয়েক আনেন। রুটিতো আর পেট ভরার জিনুস না। ভাত খাওয়ার আগে তো বেশি খাওয়া যায় না! এই কান্ডবান্ড দেইকে দাদার শউর নতুন জামোয়রে আর কোনটোয় দাওয়োত খাতি পাটায় নি। পাচে বইদরাম রইটে যায় সেই ভয়তি।
অনেকদিন দাদার সাতে খোশ গল্প কত্তি যাতাম তকন দাদা কইতো, শোন খাওয়া দাওয়া হচ্চে আমোদের জিনুস। সবায় খানেয়ালা হয় না, যারা হয় তারা রাজ রাজড়াগের বংশধর। অবশ্যি  কোনদিন তলাশ করা হয়নি দাদা কোন রাজার বংশধর। এরমদ্দি ম্যালাদিন দাদার সাতে দেকা সাক্কেত নেই। পরে এক কলমা খতমে যাইয়ে খাওয়ার টেবিলি দেকা। দাদার চিনার কায়দা নেই। একদম নাটায় গেচে। খাওয়ার সুমায় গোস্ত দিতি আসলি দাদা খাবেনা বিলে খাইজোনদারগের বারন দেচে আমি তাই দেইকে কলাম দাদা ফ্যারাডা কি ! দাদা কলে হাটে বুলাক ধরা খাইয়েচে। ডাক্তার গোস্ত খাওয়া বারন দেচে তাই নুচ থাকলি খাচ্চিনেরে আক্কেল। আমি দাদারে কলাম, ডাক্তার বারন দিলি স¹লি খাওয়া দাওয়াত্তে পাছোয় আসে, যা কয় অক্করে অক্করে পালন করে কিন্তুক ওপরয়ালা যে সব জিনুস খাতি বারন দেচে সেদিকি কারো ভ্রক্কেপ নেই। সুদ ঘুষ হারাম খাতি বারন দেচে সিডাত্তে কেউ ক্ষ্যান্ত হয় না, যা কত্তি নিষেদ কইরেচেন তা করাত্তে পিছপা হয় না, ফ্যারাডা কি!
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft