জাতীয়
শিরোনাম: পদ্মা সেতুর উদ্বোধন থেকে ফেরা হলো না অহিদুল-মফিজুরের       স্বপ্ন হলো সত্যি       পদ্মাপাড়ের উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়ে যশোরেও       সাংবাদিক মিজানুরের পিতার ইন্তেকাল       জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের বাজেট বিষয়ক বিশেষ সাধারণ সভা       পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রীকে যবিপ্রবি পরিবারের ধন্যবাদ       অনুর্ধ্ব-২০ ভলিবল দলে যশোরের দু’জন       ব্যাটিংয়ে অখুশি সিডন্স       বড় পর্দায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন দেখলেন যশোরবাসী       কালিয়ায় ট্রলিচাপায় মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু      
সংসদীয় এলাকার ৮৬ ধরনের তথ্য জানাতে বিশেষ অ্যাপ
ঢাকা অফিস
Published : Monday, 23 May, 2022 at 7:43 PM, Count : 94
সংসদীয় এলাকার ৮৬ ধরনের তথ্য জানাতে বিশেষ অ্যাপটেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা এসডিজি বাস্তবায়নের মূল চাবিকাঠি হলো তথ্যের সঠিক প্রবাহ। সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণে কোন এলাকার মানুষ কেমন আছে, কোন এলাকায় কতটা উন্নয়ন হয়েছে কিংবা কতটা পিছিয়ে আছে সেই তথ্য পর্যবেক্ষণ এবং বিশ্লেষণের করে সমন্বিতভাবে এগিয়ে যাবার উদ্দেশ্যে তৈরি হয়েছে সরকারি অ্যাপ ‘মাই কনস্টিটিউয়েন্সী’ বা ‘আমার সংসদীয় এলাকা’।
বাংলাদেশ সরকার ২০২১ সালে এ্যাপটি লঞ্চ করলেও এখনো প্রতিনিয়তই তথ্য হালনাগাদ করার কাজ চলমান রয়েছে। অ্যাপটি মূলত সংসদ সদস্যদের উদ্দেশ্য তৈরি করা হলেও দেশের সব নাগরিক তার হাতে থাকা মুঠোফোনের মাধ্যমে নিজ এলাকার প্রকৃত চিত্র জানতে পারবে। অ্যাপটিতে তিনশটি সংসদীয় আসনের দশটি বিভাগের মোট ৮৬টি সূচকের তথ্য দেয়া আছে।
অ্যাপটির মাধ্যমে নির্দিষ্ট কোন সংসদীয় এলাকার স্বাস্থ্য, শিক্ষা কিংবা সামাজিক সূচকে বর্তমান অবস্থা জানা যাবে। এর জন্য প্রথমে বিভাগ-জেলা এরপর উপজেলা এবং সংসদীয় আসনের নাম্বার নির্ধারণ করতে হবে। এরপর নিচে থাকা বিষয়গুলো নির্বাচন করলে সেই বিষয়ের সূচকগুলো দেখে নিতে পারবেন অ্যাপটির ব্যবহারকারী।
যেমন বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালী জেলার পটুয়াখালী চার আসনের কলাপড়া এলাকা নির্বাচন করার পর নীচের শিক্ষা বিষয়ে ক্লিক করলে দেখা যাবে সেখানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা কত, সেই এলাকায় এসএসসি পাশ মানুষের হারই কেমন, কতগুলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আধুনিক কম্পিউটার ল্যাব আছে এসব তথ্য। আবার স্বাস্থ্য বিষয়টি ক্লিক করলে দেখা যাবে ওই এলাকায় চিকিৎসক রয়েছেন কতজন, হাসপাতালই বা আছে কতগুলো।
স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পরিবেশ কিংবা যোগাযোগ ব্যবস্থার মত দশটি বিষয়কে রাখা হয়েছে এই অ্যাপে। যদিও এখনো সব এলাকার তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না, তবে প্রতিনিয়তই এসব তথ্য হালনাগাদ করা হচ্ছে। এই অ্যাপের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে একজন সংসদ সদস্য যেন নিজ এলাকার সার্বিক পরিস্থিতির সাথে অন্য এলাকার তুলনামূলক বিচারের মাধ্যমে নিজ এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে পারেন। পাশাপাশি এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা পূরণে নির্দিষ্ট কোন সংসদ সদস্যের এলাকায় কতটুকু অগ্রগতি হলো সেই জবাবদিহিতার জায়গাকে স্পষ্ট করা।
তবে অ্যাপপটি ব্যবহার করে একজন সাধারণ নাগরিক জানতে পারছেন তার এলাকায় শিক্ষার হার কেমন কিংবা তার এলাকায় সামাজিক সুরক্ষার আওতায় কত মানুষ ভাতা পাচ্ছেন কিংবা যোগযোগ ব্যবস্থাই বা কেমন।
এসব তথ্য একজন নাগরিকের জানা থাকলে তাদের সহজেই জনপ্রতিনিধিদের কাছে নিজ নিজ এলাকার উন্নয়নের চাহিদা কিংবা অন্য এলাকার তুলনামূলক বিশ্লেষণ জানতে পারবেন।
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ইউএনডিপির কারিগরি সহায়তায় বাংলাদেশ সরকারের তৈরি সংসদ সদস্যদের এলাকাভিত্তিক ‘মাই কনস্টিটিউয়েন্সী’ অ্যাপেটির মাধ্যমে সবাই উপকৃত হবে। রোববার রাতে ‘মাই কনস্টিটিউয়েন্সি’ ডাটা প্লাটফর্মের এডভাইজরি গ্রুপের প্রথম সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে একথা বলেন তিনি।
স্পিকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রত্যন্ত অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন ও দেশের সব অঞ্চলের সুষম উন্নয়নে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। উন্নয়ন প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সংসদ সদস্যগণকে সম্পৃক্ত হতে হবে। যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে ‘মাই কনস্টিটিউয়েন্সী’ এ্যাপটিকে জনপ্রিয় করে তুললে অ্যাপটি এলাকাভিত্তিক উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেন স্পিকার।
‘মাই কনস্টিটিউয়েন্সী’ এ্যাপটির এডভাইজরি গ্রুপের আহ্বায়ক ড. মো. আব্দুস শহীদের  সভাপতিত্বে ও সংসদ সচিবালয়ের সচিব কে এম আব্দুস সালামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে তানভীর ইমাম এমপি, নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমপি, আ ফ ম রুহুল হক এমপি, আনোয়ারুল আবেদীন খান এমপি, এস এম শাহজাদা এমপি, বদরুদ্দোজা মোঃ ফরহাদ হোসেন এমপি, প্রাণ গোপাল দত্ত এমপি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিক অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন। এছাড়া ইউএনডিপি কান্ট্রি ডিরেক্টর সুদীপ্ত মুখার্জি অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft