দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: আট বছর পর জট খুললো ভোটের        নতুন দাম কার্যকর হতে সময় লাগবে!       আগামীর সম্ভাবনা ফুটিয়ে তুললো কন্যা শিশুরা       যশোরে গ্যাসের দোকানে ভোক্তার তদারকি       অস্ত্রসহ আটক অনিক রিমান্ডে       কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় একজনের ফাঁসি, দু’জনের যাবজ্জীবন       রূপসায় ট্রলারডুবি, নিখোঁজ মাহাতাবের মরদেহ উদ্ধার        ভবিষ্যতে সম্প্রীতির বন্ধন অটুট থাকবে: খাদ্যমন্ত্রী       জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উপলক্ষে মধুখালীতে র‌্যালি ও আলোচনা সভা       কারাভোগ শেষে স্বদেশের পথে ১৩৫ ভারতীয় জেলে      
বাঘারপাড়ার স্বাস্থ্য সহকারী আসাদুরের বিরুদ্ধে
৪১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ দুদকে
কাগজ সংবাদ
Published : Monday, 19 September, 2022 at 12:06 AM, Count : 293
৪১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ দুদকে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সহকারী আসাদুর রহমানসহ তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে ৪১ লাখ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) লিখিত অভিযোগ করেন বরিশাল সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সহকারী জিয়াউল হাসান কাবুল। যার স্মারক নম্বর ০০.০১০০০০.৫০৩.২৬.২৭৪.২০১৯-২৫৮২৪। যশোর উপশহর বি ব্লকে সাত শতাংশ জমির ওপর দোতলা বাড়ি রয়েছে এই স্বাস্থ্য সহকারীর।  
অভিযোগকারী জিয়াউল হক কাবুল জানান, ২০১৯ সালে তিনি যশোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ওই সময় স্বাস্থ্য সহকারী অ্যাসোসিয়েশনের এনায়েত রাব্বি লিটন পক্ষের আহ্বায়ক কমিটির ক্যাশিয়ার ছিলেন আসাদুর রহমান। তখন আসাদুর রহমানসহ তার অনুসারীরা সংগঠনের ৪১ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেন। অর্থ লোপাটে তাকে সহায়তা করেন অ্যাসোসিয়েশনের নেতা এনায়েত রাব্বী লিটন, মোর্শেদুল আলম ও হোসেন রাসেল। এ ঘটনায় তিনি ঢাকার দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) লিখিত অভিযোগ করেন। দুদক থেকে অভিযোগ তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় ময়মনসিংহের সিভিল সার্জনকে। ২০১৯ সালের ১৮ ডিসেম্বর তদন্ত সম্পন্ন হয়। কিন্তু আজও পর্যন্ত ফলাফল জানা যায়নি।
স্বাস্থ্য সহকারী অ্যাসোসিয়েশনের যশোর সদর উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন ফেরদৌস জানান, বিগত দিনে আসাদুর রহমান সদর উপজেলা শাখার সভাপতি ছিলেন। ওই সময় সংগঠনের প্রায় তিন লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছিলেন। সংগঠনের অন্য নেতাদের চাপে পড়ে ৫৮ হাজার টাকা ফেরত দিতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু আজ অবধি সেই টাকা ফেরত দেননি।
সূত্র জানায়, আসাদুর রহমান এখনো পর্যন্ত স্বাস্থ্য সহকারী অ্যাসোসিয়েশন যশোর জেলা শাখার সভাপতির দায়িত্বে আছেন। নেতা হওয়ার সুবাদে তিনি বিভিন্ন তদবির বাণিজ্য করেন। স্বাস্থ্য বিভাগের ঊর্ধ্বতন কয়েকজন কর্মকর্তার সাথে তার সুসম্পর্ক রয়েছে। প্রভাব খাটিয়ে তিনি কর্মস্থলে ঠিকমতো দায়িত্ব পালন করেন না। ইচ্ছেমতো কর্মস্থলে যাওয়া আসা করেন।
এ বিষয়ে আসাদুর রহমান জানান, সংগঠনের টাকা আত্মসাৎ করেননি। ক্যাশিয়ারের দায়িত্বে থাকার কারণে তার ওপর অন্যায়ভাবে দায় চাপিয়ে দেয়া হয়। তিনি কোনো প্রকার অনিয়ম দুর্নীতির সাথে জড়িত না। তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ রটানো হচ্ছে।
ময়মনসিংহের সাবেক সিভিল সার্জন মুজিবুর রহমান জানান, তদন্ত প্রতিবেদন অনেক আগেই দুদক কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 
 




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft