শিক্ষা বার্তা
শিরোনাম: বাজারে ঈদের কেনাকাটার ধুম !       তবুও এগিয়ে যেতে হবে        যশোরে টিকা নিলেন আরও ২৫১৬ জন        মোটরসাইকেল চুরির মামলায় তিনজনের রিমান্ড       করোনার দাপটে রুদ্ধবাসের ‘একলা’ বৈশাখ        যশোর পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র-কাউন্সিলরদের শপথ        নতুন বছরে গড়বো আলোকোজ্জ্বল ভবিষ্যত : প্রধানমন্ত্রী       বাঘারপাড়ায় হাট-বাজারে উপচে পড়া ভীড়, কে শোনে কার কথা!       টস জিতে বোলিংয়ে কলকাতা       সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আমির হোসেনের বিরুদ্ধে শাশুড়ির মানববন্ধন      
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সাপ আতঙ্ক
ইবি প্রতিনিধি:
Published : Saturday, 3 April, 2021 at 3:48 PM, Count : 108
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সাপ আতঙ্ককরোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দেখা দিয়েছে সাপ আতঙ্ক।ঝোপঝাড় পরিষ্কার না করায় আবাসিক হল এলাকা, রাস্তাসহ বিভিন্ন স্থানে অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে বিষাক্ত সাপ। এতে ক্যাম্পাসে আবাসিক এলাকায় অবস্থানরত আবাসিক শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে বিরাজ করছে সাপ আতঙ্ক।
এ ছাড়া ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন প্রয়োজনে হল ও ক্যাম্পাসে নিয়মিত যাতায়াত করে। এতে শিক্ষার্থীদের মাঝেও সাপ আতঙ্ক বিরাজ করছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, ক্যাম্পাসের রাস্তাগুলোর দু’ধার দিয়ে আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে ঝোপ-ঝাড়।
বিভিন্ন স্থানে জমেছে আবর্জনার স্তূপ। এ ছাড়া আবাসিক হলসমূহ, মফিজ লেক, ক্রিকেট মাঠ, ফুটবল মাঠ, টিএসসিসি, কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন এলাকা, একাডেমিক ভবনগুলোর চারদিকে ও শিক্ষকদের আবাসিক এলাকা ঝোপঝাড়ে ভরে উঠেছে।
এ বিষয়ে একাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থী জানান, ক্যাম্পাসে ঝোপঝাড় বেড়ে যাওয়ায় সাপের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। অতিরিক্ত গরমে দিন কিংবা রাতে বিষাক্ত সাপগুলো রাস্তায় বের হয়। এতে আমাদের মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে চলাফেরা করতে হয়। এ জন্য প্রশাসনের উচিত ক্যাম্পাসের ঝোপঝাড় পরিষ্কার করা।
এছাড়াও ক্যাম্পাসের আবাসিক হলগুলোর সিঁড়ি ও রুমের ভেতরে সাপের খোলস পড়ে থাকতে দেখা গেছে।
সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে প্রায় ২০টিরও অধিক সাপ মারা পড়েছে।
শিক্ষক-শিক্ষার্থী ছাড়াও ক্যাম্পাস নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত আনসার সদস্যের ঝুঁকি আরও বেশি। ক্যাম্পাস নিরাপত্তার স্বার্থে রাতদিন তাদের বাইরে অবস্থান করতে হয়। এতে তাদেরও মাঝে সাপ আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের সাদ্দাম হোসেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী মনিরুজ্জামান বলেন, ‘কয়েক দিন আগে হল থেকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিতে ক্যাম্পাসে যাই। আগের তুলনায় হলের চারদিকে ঝোপঝাড় অনেক বেড়েছে। হলের ভেতরে বিভিন্ন স্থানে ও  সিঁড়িতে অসংখ্য সাপের খোলস পড়ে থাকতে দেখা যায়। এটা রীতিমতো ভয়ের কারণ। আশঙ্কা জাগে না জানি কখন হুট করে সাপ বেরিয়ে আসে। সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের ভারপ্রাপ্ত প্রধান চিকিৎসক ডা. এস এম নজরুল ইসলাম বলেন, সাপে কাটার প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা মেডিকেল সেন্টারে রয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘কাউকে সাপে দংশন করুক এটা আমরা চাই না। সাপের উপদ্রব রোধে দ্রুত ঝোপ-ঝাড় অপসারণ করা হবে। নিরাপত্তার স্বার্থে ক্যাম্পাসের লাইটিং সিস্টেম মেরামত করা হবে। সাপে কাটলে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।’




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft