সারাদেশ
শিরোনাম: দ্রুত ওজন কমাতে দৌড়াবেন নাকি সাইকেল চালাবেন?       কালীগঞ্জে আলমসাধুর ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত       উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে যাচ্ছেন কেসিসি মেয়র       খানসামা উপজেলায় উপ-নির্বাচনে ৪ প্রার্থীর মনোনয়নই বৈধ       নওগাঁয় এ বছর দেড় হাজার কোটি টাকার আম বাণিজ্যের সম্ভাবনা       সেন্ট মার্টিন থেকে মালয়েশিয়াগামী ৩৩ রোহিঙ্গা উদ্ধার       রাস্তা পেল নওগাঁর বিল পাড়ের মানুষ       টেকনাফে আইসসহ এক রোহিঙ্গা আটক       ১ হাজার টাকাতেও মিলছে না ৪০০ টাকার শ্রমিক       ভয়াবহ বৈশ্বিক খাদ্যসংকটের আশঙ্কা জাতিসংঘের       
শীতে উত্তরের জেলাগুলোতে জনজীবন বিপর্যস্ত
কাগজ ডেস্ক :
Published : Friday, 28 January, 2022 at 3:41 PM, Count : 155
শীতে উত্তরের জেলাগুলোতে জনজীবন বিপর্যস্ত মাঘ মাসের মাঝামাঝিতে এসে দেশজুড়ে শীতের তীব্রতা বেড়েছে। উত্তরাঞ্চলে সবচেয়ে বেশি শীতের কাঁপুনি ধরিয়েছে। তীব্র শীতে উত্তরের জেলাগুলোতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।
আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, শুক্রবার সারা দেশে তাপমাত্রা অস্বাভাবিক মাত্রায় নেমে যাবে। দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে তাপমাত্রা ৩-৪ ডিগ্রি কমবে। রাজশাহী বিভাগে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাবে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।
উত্তরে কয়েকদিন ধরেই কনকনে শীত আর ঠাণ্ডা হাওয়া বইছে। রংপুর অঞ্চলের ওপর দিয়ে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, রাজশাহীতে শুক্রবার মৃদু শৈত্যপ্রবাহ শুরু হওয়ার কথা। এ অবস্থায় তাপমাত্রা আরও নেমে যাবে এমন আশঙ্কা রয়েছে। সবমিলিয়ে অনেকটাই বিপর্যস্ত উত্তরের জনজীবন।
শুক্রবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয় কুড়িগ্রামের রাজারহাটে, যা রংপুরসহ উত্তরাঞ্চলে গত পাঁচ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। রংপুরে তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমান বলেন, রংপুরে তাপমাত্রা ৮ থেকে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠানামা করছে। শৈত্যপ্রবাহ আরও দুই-তিনদিন থাকতে পারে।
এদিকে বয়ে যাওয়া শৈত্যপ্রবাহে জবুথবু অবস্থা উত্তরাঞ্চলবাসীর। তীব্র শীতে বিপর্যস্ত জীবনযাত্রা। ঘন কুয়াশার চাদরে ঢেকে থাকে দিনের অর্ধেকটা সময়। সেই সঙ্গে হিমেল বাতাস। তবু বসে থাকার উপায় নেই দিনমজুর ও কৃষক-শ্রমিকদের। জীবিকার তাগিদে শীত-কুয়াশাকে উপেক্ষা করে যেতে হচ্ছে কাজে। ছিন্নমূল মানুষরাও পড়েছেন বিপাকে। খড়কুটো জ্বালিয়ে কোনো রকমে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন তারা। নগরীতেও রিকশা-ভ্যান চালকরা একটু পর পর হোটেল কিংবা চায়ের দোকানে গিয়ে চুলায় হাত গরম করে নিচ্ছেন।
কুয়াশার কারণে সকাল থেকে সারা দিনে বিভিন্ন সড়কে চলাচলকারী যানবাহনগুলোকে হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে। সন্ধ্যার পরপরই শহর ও গ্রামের হাটবাজারের মানুষের আনাগোনা কমে যাচ্ছে।
এদিকে তীব্র ঠাণ্ডায় হাসপাতালে প্রতিদিনই বাড়ছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা। বিশেষ করে শিশু ও বয়স্কদের মধ্যে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, সর্দি-জ্বরের প্রকোপ বেড়েছে। আক্রান্তরা চিকিৎসা নিতে ভিড় করছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft