দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: হত্যা চেষ্টার অভিযোগে ছেলের বিরুদ্ধে মামলা       যশোরে ইয়াবসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক       ক্ষেমতা যট্টুক, তট্টুকই দেকানো ভালো!       আফগানিস্তানে আকস্মিক বন্যা       যশোরে স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা       খুলনার লোটাস এন্টারপ্রাইজ প্রীতি খাদ্য নিয়ন্ত্রকের, চরম অসন্তোষ       হয়রানির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন       চৌগাছায় বেশি দামে তেল বিক্রি করায় ২৫ হাজার টাকা জরিমানা        কেশবপুরে পল্লী চিকিৎসক সুব্রত হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন        ‘দেশের অগ্রযাত্রায় অংশ নিয়ে ঋণ শোধ করতে হবে’      
৪৯ মোবাইল, ১০ আইডি উদ্ধারসহ নানা সাফল্য
ডিজিটাল প্রতারণা রোধে ক্রাইম তদন্ত সেলের জোরালো ভূমিকা
দেওয়ান মোর্শেদ আলম :
Published : Saturday, 6 August, 2022 at 9:57 PM, Count : 90
ডিজিটাল প্রতারণা রোধে ক্রাইম তদন্ত সেলের জোরালো ভূমিকা হ্যাক ফেসবুক আইডি পূণরুদ্ধার, চুরি ছিনতাই হওয়া মোবাইল অব্যাহত উদ্ধারসহ নানা ঈর্ষনীয় সাফল্য দেখিয়ে চলেছে যশোর জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল।  ডিজিটাল প্রতারণা রুখতে জোরেসোরে মাঠে নেমেছে তারা।
সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তিমূলক পোস্ট, মন্তব্য, গুজব, বিকাশ প্রতারণাসহ নারী হয়রানী রোধে ইতিমধ্যে কৌশলী তদন্ত হয়েছে। প্রতিদিনই চুরি ছিনতাই হওয়া মোবাইল উদ্ধার হচ্ছে। ধরা পড়ছে বিকাশ নগদ রকেট প্রতারণার ফাঁদ। উদ্ধার হচ্ছে টাকা। ফেসবুকে হয়রানীর শিকার লোকজনও সুবিধা পাচ্ছেন এই সেল থেকে। গত জুলাই মাসে চুরি হওয়া ও হারানো ৪৯ টি মোবাইল ফোন ও ভুলক্রমে অন্যের বিকাশ নম্বরে চলে যাওয়া নগদ ৭৮ হাজার ৯শ’৭০ টাকা উদ্ধার করেছেন এই সেলের সদস্যরা। হ্যাক হওয়া ১০টি ফেসবুক আইডি উদ্ধার করেছে।
৬ আগস্ট পুলিশ অফিসের কনফারেন্স রুমে ভুক্তভোগীদের হাতে উদ্ধার হওয়া টাকা মোবাইল হস্তান্তর করা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুকিত সরকার ব্রিফিং করে এই হস্তান্তর করেন।
গত বছর থেকে ডিজিটাল প্রতারণা ও অপরাধ রুখতে খুলনা রেঞ্জের ১০ জেলার সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের কার্যক্রম শুরু হয়। এছাড়া বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে পুলিশিং সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর উপর নির্দেশনা দেয়া হয় রেঞ্জ ডিআইজির পক্ষে। প্রতি জেলার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলটিকে একজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তাকে সার্বিক তদারকি করতে দায়িত্ব দেয়া হয়। এছাড়া একজন ইন্সপেক্টর,  দুইজন সাব ইন্সপেক্টর, দুইজন এএসআই এবং ৪ জন কনস্টেবল নিয়ে একটি টিম সার্বক্ষণিক সেবা গ্রহিতাদের সেবা প্রদানে নিযুক্ত করা হয়। সেই থেকে কাজ শুরু যশোর সাইবার ক্রাইম সেলের। সাইবার স্পেসে যদি কোন নারী প্রতারণা বা হয়রানীর শিকার হন তবে তাদের কাছে জানাতে বলা হয়। এক্ষেত্রে অভিযোগকারীর নাম ও ঠিকানা সম্পূর্ণ গোপন রাখা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় সংঘটিত অপরাধের আইনি সহায়তা প্রদান ও এটি ব্যবহারে সর্ব সাধারণকে আরো বেশি সচেতন করতে ঈর্ষনীয় সাফল্য দেখাতে শুরু করে। পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ইউনিট অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরির সূত্র ধরে কাজ শুরু করে জোরেসোরে।
গত ১৫ জানুয়ারিতে এই সেল আটক উদ্ধার ও নানা আইনী সহায়তা দিয়ে আলোচনায় আসে। ওই মাসে ৩০টি মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করে। বিকাশ প্রতারণার শিকার ৪ ভুক্তভোগীর ৬০ হাজার ১শ’৫০ টাকা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে হয়রানির শিকার ৪ জনকে সহায়তা দেয় সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল। এছাড়া ফেসবুকে উস্কানিমূলক তথ্য সরবারসহ বিশৃংখলা সৃষ্টি করায় ২ জনকে আটক করে। এভাবে প্রতি মাসেই অগ্রগতি হচ্ছে সেবায়। এরপর ফেব্রুয়ারি মার্চ এপ্রিল মে জুন ধারাবাহিকতা চলতে থাকে। গত মে মাসের বিভিন্ন সময় চুরি হওয়া ও হারানো ৪৪ টি মোবাইল ফোন ও ভুলক্রমে অন্যের বিকাশ নম্বরে চলে যাওয়া নগদ ১ লাখ ২৬ হাজার ১৮৬ টাকা এবং ১৪ টি হ্যাক হওয়া ফেসবুক আইডি পুনরুদ্ধার করে যশোর সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের সদস্যরা। আর ৪ জুন হস্তান্তর করা হয়। এরপর জুলাই মাসে জেলার ৯ থানার হারানো ও নিখোঁজ জিডি, সাইবার ক্রাইম সংক্রান্ত অভিযোগ মামলা তদন্ত করে এই সেল। চুরি হওয়া ও হারানো ৪৯ টি মোবাইল ফোন ও ভুলক্রমে অন্যের বিকাশ নম্বরে চলে যাওয়া নগদ ৭৮ হাজার ৯শ’৭০ টাকা উদ্ধার করে এই সেলের সদস্যরা। হ্যাক হওয়া ১০টি ফেসবুক আইডি উদ্ধার অপহরণ এবং নিখোঁজ ১০ জনকে উদ্ধারে সাফল্য দেখায়। জেলা সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় অভিযান চালিয়ে এই সাফল্য অর্জিত হয়।
৬ আগস্ট দুপুরে যশোর পুলিশ সুপারের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য দেন সাইবার ইনভেস্টিগেশন সেল যশোরের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুকিত সরকার।
তিনি জানিয়েছেন, সম্প্রতি জেলার বিভিন্ন থানায় দায়ের হওয়া জিডির তদন্ত কার্যক্রম হাতে নিয়ে মাঠে নেমেছে সেলটি। সাইবার অপরাধের সাথে জড়িতদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান নেয়া হচ্ছে। যশোরে পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ইউনিট স্থাপনের পর থেকেই আমরা এ বিষয়টির উপর গুরুত্বারোপ করছি। সফলতাও পাওয়া যাচ্ছে। কিছু অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরির সূত্র ধরে কাজ শুরু করা হয়। হারিয়ে যাওয়ার পর উদ্ধার হচ্ছে। জেলার বিভিন্ন থানাধীন মোবাইল হারানো সংক্রান্তে ভিকটিমের করা জিডির প্রেক্ষিতে গত মাস ধরে কাজ চলছে। এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft